বিবৃতি

আবারও ভুয়া বিবৃতি প্রদান করা হলো বিএনপির অফিসিয়াল দুইটি ফেসবুক পেজ থেকে যা ‘উদ্দেশ্যপ্রনোদিত ও মনগড়া বলে’ প্রত্যাখান করেছেন বাংলাদেশ খ্রীষ্টান এসোসিয়েশন। সোমবার (২৭ মে) বাংলাদেশ খ্রীষ্টান এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট মি. নির্মল রোজারিও ও মহাসচিব মি. হেমন্ত আই কোড়াইয়া স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ কথা জাননো হয়। এর আগে গত ২৭ তারিখে বিএনপির ভেরিফাইড অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ ‘বিএনপি মিডিয়া সেল’ ও ‘বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট পার্টি-বিএনপি’ থেকে বাংলাদেশ খ্রীষ্টান এসোসিয়েশনের নামে এক বিবৃতি প্রদান করা হয় যা সঠিক নয় বলে নতুন করে বিবৃতি প্রদান করে বাংলাদেশ খ্রীষ্টান এসোসিয়েশন।

BCAবিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, গত ২৩ মে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে ১৪ দলের নেতৃবৃন্দের বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত বক্তব্যের প্রেক্ষিতে স্বঘোষিত বাংলাদেশ খ্রীষ্টান এসোসিয়েশনের সভাপতি মি. এলবার্ট পি’ কষ্টার বক্তব্য উদ্দেশ্যপ্রনোদিত ও মনগড়া বলে প্রত্যাখান করেছেন বাংলাদেশ খ্রীষ্টান এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট মি. নির্মল রোজারিও ও মহাসচিব মি. হেমন্ত আই কোড়াইয়া।

মি. এলবার্ট পি’ কষ্টা প্রসঙ্গে বিবৃতিতে বলা হয়, বিএনপি-জামায়াতের মদদপুষ্ট মি. এলবার্ট পি’ কষ্টা বিগত সময়েও সমাজের নানা ধরনের বিভক্তি সৃষ্টি করার অপপ্রয়াস চালিয়েছেন। এখনও তিনি তা অব্যাহত রেখেছেন। ২০০২ খ্রীষ্টাব্দে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ খ্রীষ্টান এসোসিয়েশনের কাউন্সিল অধিবেশনে কোন শাখা সংগঠনের কাউন্সিলর হতে না পেরে তিনি স্বঘোষিত খ্রীষ্টান এসোসিয়েশন তৈরী করেছিলেন। সমাজের কোন কাজ তিনি করেন না, রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলই তার একমাত্র লক্ষ্য।

বিবৃতিতে আরও উল্লেখ করা হয়, বাংলাদেশ একটি স্বাধীন সার্বভৌম দেশ। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে সংগঠিত স্বাধীনতাযুদ্ধে ৩০ লক্ষ শহীদ ও ২ লক্ষ মা-বোনদের সম্ভ্রমের বিনিময়ে আমরা দেশ স্বাধীন করেছি। কে আমাদের স্বাধীনতার বিরোধিতা করেছেন, কে আমাদের পক্ষে কাজ করেছেন তা আমাদের জানা আছে। খ্রীষ্টান সম্প্রদায় দেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছেন, শহীদ হয়েছেন এবং পঙ্গুত্ব বরণ করেছেন। তাঁরা এদেশের অবিচ্ছেদ্য অংশ। মুক্তিযুদ্ধ ও অসাম্প্রদায়িত চিন্তা চেতনায় বিশ্বাসী এই সম্প্রদায় দেশীয় কিংবা আন্তর্জাতিক যে কোন ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে অতীতে ছিলো, এখনো আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।

এর আগে বিএনপির অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ থেকে ‘বাংলাদেশ খ্রীষ্টান এসোসিয়েশন’-এর নাম ব্যবহার করে মি. এলবার্ট পি’ কষ্টা স্বাক্ষরিত এক বিবৃতি প্রচার করা হয়। যদিও এই ব্যক্তি বাংলাদেশ খ্রীষ্টান এসোসিয়েশনের কেউ নয় বলে জানা যায়। ফলে বিবৃতিটি যে ভুয়া ও জালিয়াতি করে বানানো বিষয়টি নিশ্চিতভাবে বলা যায়। (বাংলাদেশ খ্রিস্টান অ্যাসোসিয়েশনের এর প্রতিবাদ)

অবশ্য বিএনপির জন্য এটি নতুন কোন বিষয় নয়। দলটির ভেরিফাইড পেজ এবং বিএনপিপন্থি বিভিন্ন ব্যক্তির ভেরিফাইড অ্যাকাউন্টে ভুল তথ্য ও গুজব ছড়ানো নিয়ে একাধিকবার গণমাধ্যমে আলোচনা হলেও এই সমালোচনা বন্ধে কোন উদ্যোগ দেখা যায়নি দলটির কার্যক্রমে। গেলো নির্বাচনের আগে গত বছর অক্টোবরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ভুয়া উপদেষ্টা সাজিয়ে এক ব্যক্তিকে বিএনপি কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সামনে উপস্থাপন করা হয়।

এর আগে ২০২২ সালে বিএনপির ভেরিফাইড পেজ ‘বিএনপি মিডিয়া সেল’ থেকে প্রকাশিত এক ভিডিও বার্তায় একটি ইউটিউবের লিংক শেয়ার করা হয় যার শিরোনাম ছিলো, ‘বিএনপি নেতাকর্মীদের দিকে প্রকাশ্যে গুলি ছুঁড়ছে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা।’ এই ভিডিওতে আর্জেন্টিনার জার্সি পরা অবস্থায় একজনকে গুলি করতে দেখা যায়। অপর এক ভিডিওতে আর্জেন্টিনার জার্সি পরা এই আনসার সদস্যকে দেখিয়ে একই পেজ থেকে পোস্ট করে ক্যাপশনে লেখা হয়, ‘পুলিশের সাথে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা একত্র হয়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের দিকে প্রকাশ্যে গুলি ছুঁড়েছে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা।’

এদিকে বিএনপির অফিসিয়াল ভেরিফাইড পেজ থেকে এই আনসার সদস্যের ভিডিও পোস্ট করে লেখা হয়, পুলিশের সাথে সাথে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরাও হামলা চালিয়েছে বিএনপি নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে।’ যদিও পরবর্তীতে আর্জেন্টিনার জার্সি পরা আনসার সদস্যের পরিচয় নিশ্চিত হবার পর বিএনপির এমন গুজব প্রচার নিয়ে গণমাধ্যমে সমালোচনার মুখে পড়ে দলটি। যদিও এ ধরণের গুজব প্রচারের জন্য কখনও দুঃখ প্রকাশ করা হয়নি দলটির পক্ষ থেকে। (থামছে না বিএনপির গুজব)

একই বছর সেপ্টেম্বর মাসে ‘চট্টগ্রামে রাউজান উপজেলায় বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের বাড়িতে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ-ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের হামলা’ এমন ক্যাপশন ব্যবহার করে শেয়ার করা হয় একটি পোস্ট যা সম্পূর্ণ ‘বানোয়াট ও ভিত্তিহীন’ বলে তৎকালীন সময় বিবৃতি প্রদান করে রাউজান উপজেলা বৌদ্ধ ঐক্য পরিষদ। (আবারও বিএনপির অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ থেকে ‘গুজব’) এই বছরই চট্টগ্রামে অর্থের অভাবে এক মা সন্তান বিক্রি করছে বলে গুজব প্রচার করা হয় বিএনপির অফিসিয়াল ফেসবুক থেকে। পরবর্তীতে গণমাধ্যম এ বিষয়ে অনুসন্ধান করে জানতে পারে, বাচ্চা বিক্রি করা হয়নি বরং স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতা দুস্থ ঐ মহিলার পাশে এসে দাড়িয়েছিলেন। (এবার দুস্থ এক নারীকে নিয়ে বিএনপির বিরুদ্ধে গুজবের অভিযোগ!)

bnp-phadma-bridgeএর আগে পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর ২০২১ সালের ২৬ জুন বিএনপির ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে থেকে শেয়ার দেয়া আরেকটি পোস্ট নিয়ে বেশ সমালোচনা হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। একটি ছবি শেয়ার করে সেই পোস্টের ক্যাপশনে লেখা হয়েছিলো, ‘৩০ হাজার কোটি ৩৮ লাখ ৭৬ হাজার টাকার ব্যয় করে ত্রুটিপূর্ণ সেতু নির্মাণ! প্রথম দিনেই নাট-বল্টু খুলে যাচ্ছে।’ ২০১৮ সালের ২ জানুয়ারি ছাত্রদলের এক সভায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছিলেন, ‘পদ্মা সেতু এই আওয়ামী লীগের আমলে হবে না। জোড়াতালি দিয়ে বানানো সেতুতে, কেউ উঠবেও না।’ এরপর একের পর এক পদ্মা সেতুবিরোধী মন্তব্য আসতে থাকে বিএনপি নেতাদের পক্ষ থেকে।

শুধু পদ্মাসেতু নয়, বরং করোনা মহামারীকালে বিভিন্ন সময় সরকারকে ব্যর্থ প্রমাণ করতে টিকা নিয়ে ও করোনার প্রভাব নিয়েও অদ্ভুত সব আলোচনা দেখা যায় বিএনপি নেতাদের কাছ থেকে। অফিসিয়াল পেজ থেকেও বিরূপ মন্তব্য করা হয়। রিজভীসহ অনেক বিএনপি নেতা এ সময় টিকা দেবেন না বলেও মন্তব্য করেন। শেষ পর্যন্ত তারা সকলেই অবশ্য করোনার টিকা গ্রহণ করেন।

[আবারও ভুয়া বিবৃতি বিএনপির অফিসিয়াল পেজে, প্রত্যাখ্যান করে খ্রীষ্টান এসোসিয়েশনের বিবৃতি]

২০১৩ সালেও বিএনপি নেতাকর্মীরা গুমের শিকার বলে এক ভুয়া তালিকা প্রকাশ করে গণমাধ্যম ও মানবাধিকার কর্মীদের সমালোচনার মুখে পড়েন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। একটি রাজনৈতিক দল হিসেবে বিএনপির ভেরিফাইড অফিসিয়াল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হ্যান্ডেল থেকে এত সব গুজব ছড়াবার পরও দলটির পক্ষ থেকে কখনই এ বিষয়গুলো নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করা হয়নি। বরং ফেসবুক ফ্যাক্টচেকের খড়গ থেকে রক্ষা পেতে তারা পোস্টগুলো শুধু ডিলিট করে দিয়েছে।

আরও পড়ুন :