মানুষের

বাংলাদেশের ধারাবাহিক উন্নয়ন হলেও এই দেশের মানুষের দুর্ভাগ্য হলো দেশে  হিংস্র দুইটি রাজনৈতিক দলের কারণে চলমান জীবন যাপনে সাধারণ মানুষরা মাঝে মাঝেই দুর্ভোগের সম্মুখিন হয়। বিশেষ করে নির্বাচনের আগে এবং পরে বিএনপি জামাতের এইসব নাশকতা, তান্ডবের সাক্ষী হতে হয় পুরো বিশ্বকে।

বাংলাদেশ বিরোধী ষড়যন্ত্ররক্ত, অগ্নি সন্ত্রাস, উগ্রবাদ এই তিনটি শব্দেই যেন মিলিমিশে রয়েছে বিএনপি। বাংলাদেশের শৃঙ্খল মুক্তির মহানায়ক, জাতির পিতাকে হত্যার পর নিজেদের পথ পরিষ্কার করে ১৯৭৮ সালে জন্ম হয়েছিলো স্বভাব খুনিদের দল বিএনপি। সেই রক্তপিপাসু সন্ত্রাসী বর্বর দলের স্বভাব যে পরিবর্তন হবে তা এত বছরে বাংলার মানুষের কাছে তথা বিশ্ববাসীর কাছে বহুবার প্রমাণিত হয়েছে।

আরও পড়ুন : বিএনপি এবং তাদের ঐতিহাসিক ব্যর্থ আন্দোলন, বিএনপি কোন আন্দোলনে সাড়া দেয়নি সাধারণ জনগণ

খুব বেশিদিন আগের কথা না, দেশের সাধারণ নির্বাচনের আগে আন্দোলনের নামে বিএনপি জামায়াত জোট চালিয়েছে নির্বাচন বন্ধের জন্য। দেশের সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে সাংবাদিক,পুলিশসহ অনেকের উপর।বাসে,ট্রেনে আগুন দিয়ে জীবন্ত মানুষকে পুড়িয়ে মেরেছে এই হিংস্র বাহিনীর সদস্যরা।

আরও পড়ুন : Western media’s brazen ignorance to call out perpetrators of political violence in Bangladesh.

২০১৪ সাল থেকে আন্দোলনের নামে বিএনপি জামাত জোট আগুন সন্ত্রাসের সূচনা করে। এখন পর্যন্ত বিএনপি জামাত জোটের আগুন সন্ত্রাসের শিকার হয়েছে চার হাজার গাড়ি, ৩৫টি ট্রেন, ১১ টি লঞ্চ, ৬০০ স্কুল, ৮০টির উপর সরকারি অফিস । সাড়ে তিন হাজারের বেশি মানুষকে তারা পুড়িয়েছে বিএনপি জামাত জোট।এখনো সেই পোড়া মানুষেরা মানবেতর জীবন যাপন করছে। পাঁচ শর বেশি মানুষ মৃত্যুবরণ করে।

শান্তি সমাবেশের নামে দেশে বিশৃঙ্খলা, পদযাত্রার নামে ভাঙচুর আর বিক্ষোভের নামে আগুন, আর নীরবে চলে তাদের কিলিং মিশন । এই হচ্ছে বাংলাদেশের বিএনপির আদর্শ, মূল চরিত্র।

আরও পড়ুন : আন্দোলনে আগ্রহ নেই বিএনপির তৃণমূল নেতাকর্মীদের,সাড়া নেই জনগণেরও

এসব আন্দোলন মানুষ প্রত্যাখ্যান করেছে বার বার। বরাবরের মতো নির্বাচন শেষ হলে তাদের এই সব আন্দোলনের নামে জ্বালাও পোড়াও রাজনীতিও বন্ধ হয়।

[বিএনপির আন্দোলনের নামে মানুষের অধিকার কেড়ে নেওয়ার মিশন!]

সন্ত্রাসী বিএনপিরাজনৈতিক কর্মসূচি দেওয়ার অধিকার যেকোনো রাজনৈতিক দলেরই আছে। কিন্তু মানুষের অধিকার কেড়ে নেওয়ার অধিকার তাদের কে দিয়েছে? আন্দোলনের দেশ বাংলাদেশে রাজনৈতিক আন্দোলন তো অতীতেও হয়েছে। হয়েছে মানুষের অধিকার আদায়ের আন্দোলন। কিন্তু অধিকার কেড়ে নেওয়ার মতো রাজনৈতিক কর্মসূচি আগে দেখা যায়নি।

আরও পড়ুন :